শহীদ জিয়ার সমাধি সরানোর চেষ্টা করা হলে অন্দোলন গড়ে তোলা হবে : এমপি মোশারফ হোসেন

এম এ মতিন, কাহালু (বগুড়া) প্রতিনিধি :
প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সর্ম্পকিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ও বগুড়া-৪ (কাহালু-নন্দীগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মো. মোশারফ হোসেন বলেন, বিএনপিকে ভয় পায় বলেই আওয়ামীলীগ সরকার সর্বশেষ বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা ও শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের সমাধি সরানোর চেষ্টা করছে।

তিনি সরকারের কাছে অনুরোধ জানিয়ে বলেন, শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমানের সমাধি রেখে সব স্থাপনা সরিয়ে নেন, তাতে আমাদের কোন আপত্তি নেই। বিএনপি সব সময় বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মান করে।

তিনি আরও বলেন, সরকার যদি শহীদ জিয়ার সমাধি সরানোর চেষ্টা করে তাহলে দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে দূর্বার আন্দোলন গড়ে তোলা হবে। এই জন্য নেতাকর্মীদেরকে প্রস্তুত থাকতে হবে।

বৃহস্পতিবার (২ সেপ্টেম্বর) দুপুরে বগুড়ার নন্দীগ্রাম উপজেলা ও পৌর বিএনপির যৌথ উদ্যোগে বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল (বিএনপি)’র ৪৩ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন নন্দীগ্রাম উপজেলা বিএনপির আহবায়ক জহুরুল ইসলাম মাস্টার।

অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, নন্দীগ্রাম উপজেলা বিএনপির যুগ্ম আহবায়ক হাফিজার রহমান, পৌর বিএনপির আহবায়ক লুৎফর রহমান, যুগ্ম আহবায়ক ফিললু, বিএনপি নেতা ও নন্দীগ্রাম পৌরসভার সাবেক কাউন্সিলর বেলায়েত হোসেন আদর, সদস্য আলেক জান্ডার, বুড়ইল ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক আলাউদ্দিন সরকার, যুগ্ম আহবায়ক মোফাজ্জল হোসেন, নন্দীগ্রাম সদর ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক আবু বক্কর সিদ্দিক, যুগ্ম আহবায়ক মাহবুব হোসেন, ভাটরা ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক শাহ আলম হেলাল, যুগ্ম আহবায়ক শফিকুল ইসলাম, থালতা মাঝগ্রাম ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক মাসুদ রহমান, যুগ্ম আহবায়ক নজরুল ইসলাম মেম্বার,

ভাটগ্রাম ইউনিয়ন বিএনপির আহবায়ক আব্দুল হাকিম, যুগ্ম আহবায়ক হাসেম আলী, বিএনপিনেতা জাহিদুর, আব্দুর রহিম, সিদ্দিক, মনজু, এনামুল, মশিউর, আজাহার, উপজলা যুবদলের আহবায়ক সুমন, সিনিয়ন যুগ্ম আহবায়ক আব্দুর রউফ রুবেল, পৌর যুবদলের আহবায়ক গোলাম রব্বানী, যুগ্ম আহবায়ক শাহীন, উপজেলা শ্রমিকদলের সভাপতি ওবায়দুল রহমান রবি, পৌর স্বেচ্ছাসেবকদলের সদস্য সচিব সিয়ামুল হক রাব্বী, নন্দীগ্রাম উপজেলা ছাত্রদলের জুয়েল রানা, তারেক রহমান, পৌর ছাত্রদলনেতা পলিন, নুরুন্নবী সহ বিএনপি ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন স্তরের নেতৃবৃন্দ।

আলোচনা সভা শেষে দোয়া মাহফিল ও কেক কর্তন করা হয়।