হারানো দিনের ছড়া

হারিয়ে গেছে হালের বলদ
হোঁকা,খড়ম,ঢেঁকি
দেখা যায়না পালকি, ঘোড়া
চিল, শকুন পাখি!
মাটির কলস, কলার ভেলা
দাঁড়কি, কাঁচের গুটি
দেখিনা আর আগের মত
মাটির হাঁড়ি খুটি!

উল্লুক ভুল্লুক, নদী- নালা
বিশাল বিশাল চড়া
মায়ের মুখে শুনিনা আর
ঘুম পাড়ানি ছড়া !
মাটির ঘর, ছনের ঘর
সলতে পোড়া বাতি
হারিয়ে গেছে ঘানির তৈল
গম পিশানো যাঁতি !

পাড়ায় পাড়ায় গানের আসর
হারিয়ে গেল কই
হারিয়ে গেল বিচার সালিশ
মজলিসে টক দই !
বড় বড় গাছ গুলো নেই
হঠাৎ বৃষ্টি, খরা
নদীর বুকে জল জমা নেই
সবই এখন মরা !!

কোথায় গেল হা-ডু-ডু আর
কুতকুত, কাঁনামাছি
ডাংগুলি, চুইনা, ভধন খেলা
পলানটুকু, বৌছি!
আরো গেছে হারিয়ে অই
নই, মটকা, নাড়ু…
সারি সারি ধানের গোলা
খেজুর পাতার ঝাড়ু!

সকাল বেলা দাদুর কণ্ঠে
শুনিনা কুরআন পড়া
পুঁথি, গল্প, শাস্তর-শল্লক
রম্য হাসির ছড়া !
হারিয়ে গেছে অনেক কিছু
সবই এখন স্মৃতি
তাইতো এখন হারাতে বসেছে
মানুষে মানুষে সম্প্রীতি !

কবির কন্ঠে বলতে চাই
আগেই ভাল ছিলাম
কাগজ কলমে শিক্ষিত হয়ে
অমানুষটাই রয়েগেলাম
কলের দুষন, মানুষের শোষন
ভ্যাজাল দিয়ে ভরা
আগের দিনের কথা ভেবে লিখি
হারানো দিনের ছড়া !

রচয়িতা : শেখ সোহেল রানা।